বারান্দা বাগান !গাছ নির্বাচন ও যত্ন। Balcony Garden ! Plant Selection and Care

  কেন আমরা বারান্দায় বাগান করবো?

বারান্দা বাগান !গাছ নির্বাচন ও যত্ন। Corridor Garden ! Plant Selection and Care

সকালে ঘুম থেকে উঠে দরজা খুলে বারান্দায় গিয়ে নিজের হাতে লাগানো গাছটিতে ফুল ,ফল বা সবজি থাকলে কতইনা ভালো লাগে। বর্তমান সময়ে বাড়িতে বাগান বলতে বারান্দা বা ছাদকে বোঝানো হয়ে থাকে। কারণ বর্তমান সময়ে বাড়ির সামনে বাগান করার জন্য জায়গার অভাব। বড় থেকে ছোট শহর সব জায়গায় ফ্ল্যাট বাসায় থাকতেই আমরা বেশি পছন্দ করি। Why would we garden on the porch?

ভাড়া বাসার খুঁজে।

বারান্দার বাগান টিতে যদি এলোমেলোভাবে গাছ লাগিয়ে রাখা হয় তবে ভালোর চেয়ে খারাপই বেশি হবে। এর জন্য পরিকল্পনা দরকার তবেই আপনার বারান্দার বাগানটি সৌন্দর্য বর্ধন করবে।

আজকাল প্রয়োজন অনুসারে সবধরনের গাছ (ফুল ,ফল বা সবজি) লাগানো হচ্ছে বারান্দায়। বর্তমান করোনাকালে আমাদের যে হতাশা ,চিন্তা ,মানসিক অশান্তি ,সুস্থ থাকার জন্য যে টানাপোড়ন শুরু হয়েছে সেটা থেকে কিছুটা হলেও প্রশান্তি দিবে এই বাগান। Corridor Garden ideas.

ফ্লাট বাসায় থাকব বলে কি গাছ লাগাব না? অবশ্যই লাগাবো।তবে ফ্ল্যাট বাসা গুলোতে গাছ লাগানোর জন্য বারান্দাই সবচেয়ে উৎকৃষ্ট জায়গা। Balcony Garden.

গাছ লাগালেই কি সব শেষ? না! চলুন জেনে নেয়া যাক সুন্দর পরিকল্পনা করে গাছ লাগানোর জন্য কোন বিষয়গুলো গুরুত্ব দিতে হবে ----

জায়গা নির্বাচন 

প্রথমে আসে জায়গা নির্বাচন। আপনার ফ্ল্যাটে একাধিক বারান্দা থাকতে পারে কিংবা একটি ছোট বারান্দা থাকতে পারে। একটি ছোট বারান্দা তাই বলে সখের গাছটি লাগাতে পারবেন না? অবশ্যই পারবেন। প্রথমে বারান্দার আকার দেখে কোন জায়গায় কি ধরনের গাছ লাগাবেন তা নির্ধারণ করে নিন। ছোট বারান্দা হলে হালকা টব (কাঠের বা প্লাস্টিকের) পাটের বা প্লাস্টিকের দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে দিতে পারেন, এতে অল্প জায়গায় অনেক গাছ লাগাতে পারবেন। লতানো গাছ গুলো গ্রিলের সাথে  উঠিয়ে দিতে পারেন। বড় বারান্দা হলে বড় টবে আপনার পচ্ছন্দ মত গাছ লাগাতে পারেন।

গাছ নির্বাচন 

কেমন গাছ নির্বাচন করবেন? বারান্দার আকার দেখে এবং আলো বাতাসের পরিমাণ এর দিকে খেয়াল রেখে গাছ নির্বাচন করুন। আপনি আপনার ইচ্ছামত সিজনাল ফুল, ফল বা সবজি গাছ লাগাতে পারেন। আবার সারা বছর ধরে ফুল ,ফল বা সবজি হয় এমন গাছও লাগাতে পারেন। সেটা আপনি নির্ধারণ করে নিন। নার্সারিগুলোতে আজকাল প্রায় সব ধরনের গাছের চারা পাওয়া যায়।

ফুলের গাছের মধ্যে প্রথমে মাথায় আসে 

  • গোলাপ ,
  • হাসনাহেনা ,
  • বেলি, কাটামুকুট ,
  • পর্তুলিকা ,
  • মর্নিং গ্লোরি। 


  • আপনি শাপলা ,
  • পদ্ম ,
  • লেটুসপাতা 

দিয়েও সাজাতে পারেন আপনার শখের বারান্দা। ফুল গাছ ছাড়া বিভিন্ন ধরনের 

  • মরিচ ,
  • লেবু, 
  • টমেটো, 
  • বেগুন, 
  • পুঁইশাক ,
  • কলমি শাক ,
  • পুদিনা পাতা ,
  • ধনেপাতা ,
  • পেঁয়াজ ,
  • রসুন ,
  • আলু 
  • তুলসী
  • অ্যালোভেরা 

লাগাতে পারেন। ফলের গাছ লাগাতে পারেন  আপনার পছন্দমত। বারান্দায় আলো-বাতাস কম থাকলে লাগিয়ে নিতে পারেন মানিপ্লান্ট ,কয়েন প্লান্ট, পামগাছ ,স্পাইডার প্ল্যান্ট এর মত গাছগুলো। মাঝে মাঝে একটু রোদের ব্যবস্থা করতে পারলে গাছ গুলো ভালো ভাবে বেড়ে ওঠে দেখতেও সুন্দর।

আপনার কর্মব্যস্ততায় গাছের যত্ন করার সময় না পেলে লাগিয়ে নিতে পারেন বিভিন্ন ধরনের ক্যাকটাস। মাটি একদম শুকিয়ে গেলে অল্প পানি স্প্রে করে দিলেই হয় আর দিনে পাঁচ-ছয় ঘণ্টা রোদ পেলে বেড়ে ওঠে নিশ্চিন্তে। How to grow water garden on balcony?

 টব নির্বাচন 

বাজারে অনেক সুন্দর মাটি ,প্লাস্টিক ,সিরামিক ও কাঠের টব পাওয়া যায়। আপনি আপনার গাছের ধরন ও পছন্দ মতো কিনে নিতে পারেন। আবার আপনার বাসায় থাকা অপ্রয়োজনীয়' বালতি,মগ,বাটি, বোতল কিংবা অন্য কোন গাছ লাগানোর উপযোগী পাত্র রিসাইকেল করে  আপনার পছন্দমত তৈরি করে নিতে পারেন।

মাটি  

টবের ধরন বুঝে মাটি  ব্যবহার করুন। পর্যাপ্ত মাটি না পেলে মাটির পরিবর্তে আপনি বালি বা পানিতেও গাছ লাগাতে পারেন। বর্তমানে অনেক  গাছ বিশেষ পদ্ধতিতে পানিতে জন্মানো যায়। 

পানি 

গাছে প্রতিদিন সকালে ও বিকালে পানি দিতে হবে। তবে রোদ থাকাকালে গাছে পানি দেওয়া যাবে না। এতে আপনার শখের গাছ মরে যেতে পারে। গাছের গোড়ার মাটি ভেজা থাকলে পানি দিতে হবে না। টবের মাটি একেবারে শুকনো না হয় বা পানি জমে না থাকে সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। 

কারণ এই দুটোই গাছের জন্য ক্ষতিকর। বর্ষাকালে যদি পর্যাপ্ত বৃষ্টির পানি পায় তবে গাছে পানি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। কিছু গাছ আছে যেমন অর্কিড ,অ্যালোভেরা ইত্যাদি গাছে সপ্তাহে একদিন পানি দিলেও চলে। তাই গাছের ধরন বুঝে পানি দিতে হবে।

তাপমাত্রা 

গাছের জন্ম ও বেড়ে ওঠা নির্ভর করে তাপমাত্রা ও আলোর উপর। আপনার বারান্দায় যদি তাপমাত্রা দিনের ৭০ ডিগ্রি থেকে ৭৫ ডিগ্রি ও রাতের বেলা ৬৫ থেকে ৭০ ডিগ্রি ফারেনহাইট হয় তবে সবুজ উদ্ভিদ জন্মাতে পারেন নিশ্চিন্তে।

আলো 

সবুজ গাছ বেঁচে থাকার ও বৃদ্ধি পাওয়ার পুরোটাই নির্ভর করে সূর্যের আলোর উপর ।সূর্যালোক পর্যাপ্ত না পেলে সবুজ উদ্ভিদ খাদ্য প্রস্তুত করতে পারে না। ফলে গাছ ঠিকমতো বৃদ্ধি পেতে পারে না ফুল এবং ফল দিতে পারেনা  ।এমন কি গাছ পুষ্টির অভাবে মরেও যেতে পারে ।

আপনার বারান্দায় পর্যাপ্ত সূর্যালোক না পেলে সে অনুযায়ী গাছ নির্বাচন করতে হবে । বিভিন্ন পাতাবাহার গাছ আছে তেমন সূর্যালোকের প্রয়োজন হয় না ।সেগুলো লাগিয়ে আপনার বারান্দার সৌন্দর্য বাড়াতে পারেন  ।যেসব গাছে ফুল হয় সেগুলো বেশি সময় সূর্যালোকের প্রয়োজন হয় ,নয়তো গাছে ফুল কম ফুটবে  , গাছে ফল ধরবে না তাই আপনার বারান্দার সূর্যালোকের উপর নির্ভর করে পছন্দমতো গাছ নির্বাচন করে নিন ।

রাতে হালকা আলো লাগিয়ে নিন এতে রাতের বারান্দার সৌন্দর্য বাড়বে অনেকাংশে ।

সার

টবের গাছের জন্য আপনাকে মাঝে মাঝে সার ব্যবহার করতে হবে ।জৈবসার মাসে একবার দিতে পারেন ।সবজির খোসা ছোট ছোট করে কেটে এবং ব্যবহার করা চা পাতা ভালো করে ধুঁয়ে তা অর্গানিক সার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

কীটনাশক

পোকামাকড়ের ও রোগ-জীবাণুর হাত থেকে গাছ কে বাঁচাতে গাছে কীটনাশক স্প্রে করতে পারেন । এতে করে গাছ পোকামাকড় ও রোগবালাই এর হাত থেকে রক্ষা পাবে  ।ফলে ফুল ও ফলও ধরবে অনেক।

বারান্দায় বারোমাসি ফুল গাছ

  • রঙ্গন, 
  • বেলি, 
  • নয়নতারা, 
  • হাসনাহেনা, 
  • গন্ধরাজ, 
  • কামিনীর,
  •  জুঁই,
  • মাধবীলতা, 
  • বাগানবিলাস, 
  • ঝুমকোলতা,
  • নীলকণ্ঠ,

গাছ লাগানো তো হলো , বারান্দায় আমরা একটু বসার ব্যবস্থা করতে পারি, এতে আমরা বিকেলবেলা কিংবা অবসর সময়ে নিশ্চিন্তে বসে আনন্দে সময়টুকু কাটাতে পারব  সবুজের মাঝে। সেজন্য আপনি জায়গার পরিমাণ অনুযায়ী চেয়ার   বা মোড়া রাখতে পারেন। আবার শতরঞ্জির বিছিয়ে দিতে পারেন ।Narrow Balcony Garden Ideas.

বড়দের পাশাপাশি ছোটদের ও ওদের অবসর সময়টা গাছের পরিচর্যা করার জন্য উৎসাহিত করতে পারেন এতে ওদের সময় টা ভালো কাটবে  এবং গাছের প্রতি  ভালবাসাটা অনেক গুন বেড়ে যাবে ।গাছ লাগান ,পরিবেশ বাঁচান ।ভালো থাকুন ।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post